ফুচকা বিক্রেতার নতুন আবিষ্কার ‘টাচ মি নট পানিপুরী’ মেশিন ভাইরাল


করোনা সংকটের সময়  ফুচকাপ্রেমীরা কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে কষ্টে আছেন, অনেকেই সংক্রমণের ভয়ে ফুচকা খেতে পারছেন না, বিকল্প পথ হিসেবে প্যাকেটের ফুচকা ঘরে বানিয়ে খেতে হচ্ছে। কিন্তু বাইরের ফুচকার এক আলাদাই স্বাদ। ফুচকার নেশা যার আছে সেসব মানুষের জন্য সত্যি ফুচকা না খেতে পারা টা ভীষণ দুঃখজনক। আবার ফুচকাপ্রেমীদের পাশাপাশি ফুচকা বিক্রেতারাও একইভাবে সমস্যায় পরেছেন৷ বহু মানুষ  যারা ফুচকা বিক্রি করে জীবনধারণ করেন করোনা সতর্কতার জেরে তাদেরও ভুগতে হচ্ছে অর্থকষ্টে। 

 আনলক পর্ব শুরু হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে খুলেছে অফিস, দোকানপাট, রেস্তরাঁ তবে কোথাও কোথাও ফুচকা বিক্রেতাদের দেখা গেলেও সংক্রমণের ভয়ে আগের তুলনায় অনেকাংশে কম ফুচকাপ্রেমীদের সংখ্যা। তবে ছত্তীসগড়ের রাইপুরের বাসিন্দা এক ফুচকা বিক্রেতা ফুচকাপ্রেমীদের জন্য এক দারুণ কাজ করলেন। তিনি এমন অভিনব যন্ত্র তৈরী করেছেন যার মাধ্যমে হাতের সংস্পর্শ ছাড়াই বিক্রি করা যাবে ফুচকা। ফুচকাপ্রেমীরা   আলুর পুর ভরা ফুচকা এই যন্ত্রের নীচে ধরলেই ভরে যাচ্ছে টক জল। জলে হাত না দিয়ে ফুচকায় আলু ভরে রেখে দিচ্ছে বিক্রেতা, যার ফলে সংক্রমণের ভয় অনেকটাই কম থাকছে। 


সম্প্রতি এই নতুন যন্ত্রের মাধ্যমে ফুচকা খাওয়ার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা গেছে ফুচকা বিক্রেতার এই প্রয়াসকে বাহবা দিচ্ছেন সকলে।ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে,  মেশিনটিতে আছে তিনরকম ফ্লেভারের টকজলের তিনটি নল। একটি ধনেপাতা পুদিনা, একটি খাট্টা মিঠা এবং একটি জলজিরা ফ্লেভার। 

আলুমাখা ফুচকার প্লেট গ্লাভস পরে দিচ্ছেন ক্রেতাকে, তারপর ক্রেতার পছন্দমতো ফ্লেভারের জলের নলের নীচে ফুচকা ধরে মনের মতো টক জলে ভর্তি সুস্বাদু ফুচকার স্বাদগ্রহণ করছেন ফুচকাপ্রেমীরা। এই নতুন মেশিনের নাম  বিক্রেতা দিয়েছেন ‘টাচ মি নট পানিপুরী’। নতুন মেশিনের ব্যবহারের পাশাপাশি তিনি বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে মানুষের সুরক্ষার দিকটিকে গুরুত্ব দিতে এই অভিনব পদ্ধতির কথা ভাবায় সকলে প্রশংসা করছেন ওই ব্যক্তির, পাশাপাশি সকলেই অপেক্ষায় আছে কবে দেশের প্রতিটি প্রান্তে দেখা মিলবে এই মেশিনের

Viral Telegram Channel 🔥

Recent Posts